ইন্ডেক্সিংয়ের বিষয়ে প্রাথমিক তথ্য

Google যে অ্যালগরিদমের মাধ্যমে আপনার কন্টেন্ট ইন্ডেক্স করে, তাতে ব্যবহারকারীর চাহিদা এবং কোয়ালিটি সংক্রান্ত বিষয় বিবেচনা করা হয়। ব্যবহারকারী কীভাবে আপনার কন্টেন্ট খুঁজে পাবেন, তা পৃষ্ঠার ইউআরএলের উপরে নির্ভর করে ম্যানেজ করার মাধ্যমে আপনি Google-এর ইন্ডেক্সিংয়ের প্রসেসটিকে প্রভাবিত করতে পারেন। আপনার পৃষ্ঠার ইউআরএল ছাড়া আমাদের সিস্টেম আপনার তথ্য ক্রল অথবা ইন্ডেক্স করতে বা দেখাতে পারবে না। Google কীভাবে আপনার কন্টেন্টটি দেখবে তা ম্যানেজ করার মাধ্যমে Google ইন্ডেক্সে অন্তর্ভুক্তি সম্পর্কে এই ডকুমেন্টটিতে বলা হয়েছে। এটিই ইন্ডেক্সিংয়ের প্রথম ধাপ।

Google যাতে খুঁজে পায়, তার জন্য রিসোর্স ম্যানেজ করার বিভিন্ন পদ্ধতি

Google-কে আপনার রিসোর্স এবং ডেটা খুঁজে পেতে সাহায্য করার জন্য নিষ্ক্রিয় থেকে শুরু করে অতি-সক্রিয়, একাধিক পদ্ধতি আছে। সার্চে আপনার কন্টেন্ট যাতে সব থেকে ভালভাবে দেখা যায় তার জন্য সাইটম্যাপ এবং রিসোর্স লিঙ্কিংয়ের মতো রিসোর্স মেটাডেটার ব্যবহার সংক্রান্ত বেশ কিছু বিকল্পের বিষয়ে এই বিভাগে বলা আছে।

ক. নিষ্ক্রিয় পদ্ধতি অবলম্বন করুন

আপনি যদি সাইটম্যাপ ছাড়া কোনও ওয়েবসাইট তৈরি করেন তাহলে আমাদের সিস্টেম আপনার সাইটের কন্টেন্ট খুঁজে বের করে তা ইন্ডেক্স করার চেষ্টা করে, যদি না আপনি নির্দিষ্টভাবে আপনার কন্টেন্টে ক্রলারকে ব্লক করেন। সাধারণত, আপনার পৃষ্ঠা এবং অন্যান্য ওয়েবসাইটের যে পৃষ্ঠা থেকে আপনার কন্টেন্টের সাথে লিঙ্ক করা হয়, Google-এর সিস্টেম সেই সম্পর্কগুলি ক্রল করে। আরও তথ্যের জন্য প্রারম্ভিক নির্দেশিকা পড়ুন।

সুবিধা: কন্টেন্ট তৈরি করা ছাড়া আর কোনও কাজ করতে হবে না। আপনার ওয়েবসাইটটি যদি একটি সাধারণ ওয়েবসাইট হয় এবং সার্চের ফলাফলের জন্য নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে কোনও কন্টেন্ট জমা দেওয়ার প্রয়োজন না থাকে, তাহলে এই পদ্ধতিটি যথেষ্ট ভালভাবে কাজ করবে। অসুবিধা: কন্টেন্ট খুঁজে পাওয়ার জন্য যদি শুধুমাত্র স্বাভাবিক লিঙ্কের উপর ভরসা রাখতে হয়, তাহলে আমাদের সিস্টেম আপনার সাইটের সব কন্টেন্ট খুঁজে পেতে নাও পারে, বিশেষ করে যদি সেটি নতুন হয় বা সেটির রেফারেন্সের সংখ্যা খুব কম হয়। আপনি যদি চান যে সার্চে নতুন কন্টেন্টে দেখানো হোক, তাহলে অসুবিধা হতে পারে। যেমন, বিশিষ্ট ফলাফলে (যা আগে রিচ কার্ড নামে পরিচিত ছিল) যোগ করার জন্য কোনও কন্টেন্ট বিশেষভাবে মার্ক-আপ করলে এই পদ্ধতিতে বিশেষ লাভ হবে না।

খ. সক্রিয়ভাবে ইউআরএল ম্যানেজ করুন

আমাদের সিস্টেমে আপনার কন্টেন্টে সরাসরি যাওয়ার ইউআরএলের তালিকা, অর্থাৎ সাইটম্যাপ জমা দিলে, আপনার পৃষ্ঠাগুলি খুঁজে নেওয়ার জন্য ইন্টারনেটের অন্যান্য রেফারিং পৃষ্ঠার সাথে আপনার পৃষ্ঠার সম্পর্কের উপর নির্ভর করতে হবে না। এর ফলে আমাদের সিস্টেম আরও দ্রুত আপনার কন্টেন্ট খুঁজে নিতে পারবে। সাধারণত সাইটম্যাপটি ডোমেনের এমন জায়গায় হোস্ট করতে হয় যা Googlebot অ্যাক্সেস করতে পারে।

এছাড়া, যদি একাধিক ইউআরএলে একই ধরনের কন্টেন্ট থাকে, যেমন এএমপি পৃষ্ঠা, HTML পৃষ্ঠা এবং মোবাইল অ্যাপ ভিউ, তাহলে সেই রিসোর্সগুলি যে একে অন্যের সাথে সম্পর্কিত, তা উল্লেখ করে দিলে আমাদের সুবিধা হয়। আপনার রিসোর্সগুলির মধ্যে যে সম্পর্ক আছে তা নির্দিষ্ট করে বলে দিলে আমাদের সিস্টেম সঠিক কন্টেন্টটি দেখাতে পারে, যেমন আপনার অ্যাপ বা এএমপি পৃষ্ঠার লিঙ্ক। এর জন্য, সাইটের আদর্শ পৃষ্ঠাটি সেট-আপ করুন এবং বিকল্প ওয়েব বা অ্যাপের কন্টেন্টের সাথে লিঙ্ক করুন। আপনার বিভিন্ন রিসোর্সের মধ্যে কী সম্পর্ক আছে তা যদি আমরা বুঝতে পারি, তাহলে সার্চের ফলাফলে ব্যবহারকারীকে কী ধরনের কন্টেন্ট দেখাতে হবে তা আমরা নির্ধারণ করতে পারব। যেমন, কোনও ব্যবহারকারী যদি ফোনে সার্চ করেন এবং তার ফোনে আপনার অ্যাপটি যদি ইনস্টল করা থাকে, তাহলে তাকে অ্যাপের লিঙ্ক দেখানো হবে।

সুবিধা: সার্চে আপনার বিশিষ্ট ফলাফলের পারফর্ম্যান্স আরও ভাল করে তোলার সুযোগ। নতুন এবং রেফারেন্সের সংখ্যা কম, সিস্টেমে এমন কন্টেন্ট অন্তর্ভুক্ত করার কাজটি দ্রুত হয়। Google যাতে আপনার কন্টেন্ট বিভিন্ন রূপে দ্রুত দেখাতে পারে, তার জন্য একটি সম্ভাব্য বাধা এই পদ্ধতিতে দূর হয়।

অসুবিধা: রিসোর্স মেটাডেটা, অর্থাৎ সাইটম্যাপ এবং আপনার ওয়েব পৃষ্ঠা, অ্যাপ ও এএমপি পৃষ্ঠার মধ্যে যা সম্পর্ক তা আলাদা করে নির্দিষ্ট করে দিতে হয়।

গ. Google-এ নতুন এবং আপডেট করা ইউআরএল জমা দিন

আমাদের সিস্টেম যাতে আপনার সাইট দেখতে পায় তার জন্য সাইটম্যাপ হোস্ট করার পাশাপাশি, নতুন ইউআরএল এবং আগে থেকে থাকা ইউআরএলের কন্টেন্টে পরিবর্তন হলে তার জন্যেও আপনি বিজ্ঞপ্তি দিতে পারেন।

নতুন ইউআরএলের ক্ষেত্রে সাইটম্যাপ জমা দিলে আমরা দ্রুত আপনার কন্টেন্ট খুঁজে নিতে পারি। আগে থেকে থাকা ইউআরএলের কন্টেন্টে পরিবর্তন করা হয়ে থাকলে আপনি পরিবর্তনের টাইমস্ট্যাম্প সহ XML সাইটম্যাপ জমা দিতে পারেন, যাতে পরিবর্তিত কন্টেন্ট আবার ইন্ডেক্স করা যেতে পারে।

ইউআরএলের তালিকাটি আমাদের সিস্টেমে আসার পরে আমরা ঠিক করি কখন সেই কন্টেন্ট ক্রল করতে হবে। কোনও কন্টেন্ট ক্রল করার আগে আমরা দেখে নিই সার্ভারে রিসোর্সটি আছে কিনা। এই কাজটিকে "যাচাইকরণ" বলা হয়। তার পরে কন্টেন্টটিকে আমরা ইন্ডেক্সিংয়ের জন্য প্রস্তুত করি।

সুবিধা: Google-এ ইউআরএল জমা দিলে ডোমেনের কন্টেন্ট আপডেট করার পরে যথাযথ সময়ে তা সার্চে তুলে ধরা সম্ভব হয়।

অসুবিধা: বিশেষ কিছু অসুবিধা নেই। সাইটম্যাপ তৈরির কাজটি শেষ হয়ে গেলে সেটি Google-এ জমা দেওয়া খুবই সহজ এবং অনেক কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমে প্রোগ্রামের মাধ্যমে সাইটম্যাপ আপডেট করার সুবিধা পাওয়া যায়।

সাইটম্যাপ সম্পর্কে আরও জানতে এবং আপনার সাইটের জন্য সাইটম্যাপ কেন প্রয়োজন হতে পারে তা বুঝতে Search Console সহায়তা কেন্দ্রে যান।

ঘ. আপনার অ্যাপটি ইন্ডেক্স করুন

Firebase অ্যাপ ইন্ডেক্সিং, যা আগে Google অ্যাপ ইন্ডেক্সিং নামে পরিচিত ছিল, সেটির মাধ্যমে আপনার অ্যাপটি Google Search-এ অন্তর্ভুক্ত করা হয়। আপনার অ্যাপের সাথে সম্পর্কিত কন্টেন্ট খোঁজার সময় যদি ব্যবহারকারীর কাছে আপনার অ্যাপটি আগে থেকেই ইনস্টল করা থাকে, তাহলে অ্যাপটি সার্চের ফলাফল থেকে সরাসরি চালু হয়ে যায়। যদি অ্যাপটি ইনস্টল করা না থাকে, তাহলে অ্যাপ সার্চের ফলাফলে ইনস্টল কার্ড দেখানো হয়। এই দু' ধরনের পরিস্থিতিতেই অ্যাপ ইন্ডেক্সিং এপিআই কাজ করে এবং ব্যবহারকারী সার্চ বক্সে লিখতে শুরু করলে সাজেশনও দেয়। Firebase অ্যাপ ইন্ডেক্সিং সম্পর্কে আরও জানুন।

সুবিধা: অ্যাপ ইন্ডেক্সিং ব্যবহার করলে আপনার সমস্ত কন্টেন্ট, অ্যাপ এবং ওয়েবসাইটের র‍্যাঙ্কিং ভাল হওয়ার সুযোগ থাকে।

অসুবিধা: অ্যাপ এবং ওয়েবসাইটের জন্য কন্টেন্ট ম্যানেজমেন্টের অতিরিক্ত দায়িত্ব নিতে হয়। তবে Android Studio ইন্টারফেসের মাধ্যমে কন্টেন্ট ডেভেলপ করলে কাজটি অনেক সহজ হয়ে ওঠে, যার ফলে রিসোর্স ম্যানেজমেন্টের কাজটিও সাবলীলভাবে করা যায়। অ্যাপ ইন্ডেক্সিংয়ের জন্য Android Studio-এর ব্যবহার সম্পর্কে আরও জানুন।

পরবর্তী: ইউআরএলের তালিকা তৈরি করুন

Send feedback about...

সার্চ
সার্চ